শনিবার, ১৯ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:১১ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
নিষ্ক্রিয় ২৮ রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন বাতিল চাই–মোমিন মেহেদী ইনতিজার শিশু বৃত্তি পরীক্ষার পুরস্কার বিতরণ গাজীপুর জেলার জোলারপাড় হতে ৭৭পিস ইয়াবাসহ দুই জন গ্রেফতার টঙ্গীতে মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় দুই যুবককে কুপিয়েছে মাদক ব্যবসায়ীরা গাজীপুরের দক্ষিণ সালনা এলাকা হতে শীর্ষ দস্যু চক্রের তিন জন গ্রেফতার নড়াইলে ৬ দফা দাবিতে ইউএনওর নিকট স্বারকলিপি প্রদান করলো পরিবার কল্যাণ সহকারী সমিতি লোহাগড়ায় আ,লীগের আসন্ন সম্মেলনকে কেন্দ্র করে কাউন্সিলর বঞ্চিতদের বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ নড়াইলে শিশুর লাশ উদ্ধার যুবলীগ নেতাকে অপহরণের চেষ্টার অভিযোগ তাতীলীগ নেতার বিরুদ্ধে!! পানির গতিমুখ বন্ধ করায় ৩০বিঘা জমি অনাবাদি মাজবাড়ী খাঁরদিঘীতে অবৈধভাবে মাছ চাষ দুরচিন্তায় কৃষক \ আবেদনেও প্রতিকার নেই গাজীপুরের কাশিমপুর রওশন মার্কেট হতে ২৫ লিটার চোলাইমদসহ চার মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার গাজীপুরের শীর্ষ মলম/অজ্ঞান পার্টির চক্রের সক্রিয় চার জন গ্রেফতার বিএমএসএফ’র ৫০ শাখা কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ ঘোষণা সভাপতির দুর্নীতির প্রতিবাদে টঙ্গী প্রেসক্লাবের অফিস কক্ষে তালা ইভিএম ভোট গ্রহন গাবতলী রামেশ্বরপুর ইউপি উপ-নির্বাচনে শাহজাহান নির্বাচিত গাজীপুর জেলার উলুসারা হতে প্রায় ০১ গ্রাম হেরোইনসহ ০২(দুই) জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার গাজীপুরের দিঘীরচালা হতে ১০০ গ্রাম গাঁজাসহ ১ মাদক ডিলার গ্রেফতার রংপুরে ১২ সাংবাদিকের বিরুদ্ধে পিআইও’র মামলা: বিএমএসএফ’র প্রতিবাদ নিহত দুই ক্রিকেটারের দেহ মর্গে ফেলে রাখায় হাসপাতাল ভাঙচুর অবশেষে রাস্তার ওপর থেকে সরানো হলো বিদ্যুতের খুঁটি
গুজব বলে উড়িয়ে দিলেন জয়া

গুজব বলে উড়িয়ে দিলেন জয়া

Spread the love

জয়া আহসান। মডেলিং ও ছোট পর্দা দিয়ে বাংলাদেশের মিডিয়ায় তার শুরু। এরপর বড় পর্দায় কাজ করেও সফলতা পেয়েছেন দারুণ। পা রেখেছেন ওপার বাংলার চলচ্চিত্রেও। সেখানেও সফল তিনি। বর্তমানে তিনি দুই বাংলার জনপ্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী।

বাংলাদেশে তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও বগলদাবা করেছেন নিজের অসাধারণ অভিনয়ের জন্য। অন্যদিকে এরইমধ্যে কলকাতায়ও অনেক সম্মাননায় ভ‚ষিত হয়েছেন। এদিকে ওপারের নির্মাতা সৃজিতের সঙ্গে জয়ার সম্পর্ক নিয়েও গুঞ্জন অনেক দিনের। এটা নিয়ে কখনোই তেমন একটা মুখ খোলেননি জয়া। তবে বিষয়টি নিয়ে স¤প্রতি কলকাতার দৈনিক আনন্দবাজারে দেয়া একটি সাাৎকারে এ ব্যাপারে কথা বলেছেন তিনি। এ বিষয়ে জয়া বলেন, শিল্পী হিসেবে তো ওর (সৃজিত) সঙ্গে কাজ করতে চাই। আমরা একসঙ্গে পথ চললে সেটা একটা বলার বিষয় ছিল। কিন্তু এটা পুরোটাই গুজব। জয়ার এমন কথার রেশ ধরেই প্রশ্ন ছিল ঢাকায় আপনার বিশেষ বন্ধু আছে তো। নামটা বলবেন? জয়া উত্তরে হেসে বলেন, নাম তো বলা যাবে না। তাহলে বিয়ের পরিকল্পনা কি রয়েছে? জয়ার উত্তর, এই মুহূর্তে নয়। এদিকে কলকাতায় এই সময়ে দারুণ ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন জয়া। নিজের ব্যস্ততা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শুটিং নিয়েই দারুণ ব্যস্ত থাকতে হচ্ছে। যদি আমি শুধু এখানে বা ওখানে কাজ করতাম, তবে এতটা ব্যস্ত থাকতাম না। এমন দিনও যায়, ঢাকায় শুটিং সেরে রাতের ফাইটে কলকাতায় আসি। সকালে এখানে লুক টেস্ট। দু’দিক সামলাতে গিয়েই নিজেকে আর সময় দেয়া হচ্ছে না। কলকাতায়ও এতটা সফল হবেন এটা ভেবেছিলেন? জয়া বলেন, রোডম্যাপ করে কখনও এগোইনি। ‘আবর্ত’র পরেও কিছুটা সময় নিয়েছিলাম। এখন অবশ্য বেশ কিছু ডায়নামিক চরিত্রের অফার পেয়েছি। আমি তো নিজেকে শিল্পী হিসেবে দেখতে চাই। নায়িকা তকমাটা চাইনি। তার মানে কি নাচ-গানের ছবি করবেন না? জয়া বলেন, কেন করবো না? ওগুলোও তো চরিত্র। যা করবো, তাতে যেন শিল্পমানটা থাকে। আর চরিত্রগুলো ভার্সেটাইল হয়। বাংলাদেশের এক সাংবাদিক লিখেছেন, ‘জয়া আমাদের গর্ব, আবার আপেও।’ ওই ইন্ডাস্ট্রি ছেড়ে আসায় আপনার কোনো আপে আছে? জয়া বলেন, আসলে বাংলাদেশে এক্সপেরিমেন্টাল ছবির বাজারটা এখনও সে ভাবে তৈরি হয়নি। আমার খুব ভালো একটা ছবি ‘খাঁচা’ হঠাৎ করে রিলিজ করলো। ছবিটির মার্কেটিং ঠিকভাবে করা হয়নি। আর একটি ছবি ‘বিউটি সার্কাস’, যেখানে আমি সার্কাসের ট্র্যাপিজের খেলা দেখাই, সেটা টেকনিক্যাল কারণে বহুদিন ধরে আটকে। শিল্পী হিসেবে ছবির রিলিজ নিয়ে একটু আপে আছে। স্ক্রিপ্ট বাছাইয়ের েেত্র বাংলাদেশের দর্শকের প্রতিক্রিয়া কি মাথায় রাখেন? জয়া বলেন, কোনো চরিত্র বা দৃশ্য করতে ব্যক্তিগতভাবে আমার বাধা আছে কি না, সেটা আগে বিবেচ্য। একটি মেয়ে চরিত্রের খাতিরে স্মোক, ড্রিংক করতেই পারে। তবে তার যুক্তি থাকতে হবে। আমি ওই মাটি থেকেই জয়া আহসান হয়েছি, তাই ওদের কথাও ভাবি। এখানকার মানুষের ভালো লাগাকেও সম্মান দেয়া আমারই দায়িত্ব। প্রযোজনাও  তো করছেন? জয়া বলেন, আমি বরাবরই ভাবতাম, ছবি করার জন্য হুমায়ূন আহমেদের ‘দেবী’ খুব ভালো গল্প। ছবিটির জন্য সরকারি অনুদান পেয়েছি। শুটিংও বাংলাদেশে হয়েছে। এখানে  পোস্ট প্রোডাকশনের কাজ শুরু করেছি। অভিনেত্রী জয়ার অনিশ্চয়তার জায়গা কোনটা? জয়া উত্তরে বলেন, বারবার নিজেকে অতিক্রম করতে চাই। তবে মেধা মাঝে মাঝে নিম্নমুখী হয়। সেই ভয় আছে। মানুষের কাছাকাছি থাকতে চাই। আর এমন কাজ করবো না, যাতে আমার শিল্পীস্বত্তা নষ্ট হয়। অভিনয় আমার ইবাদত। কলকাতা কতটা কাছের হলো? জয়ার ভাষ্য, বাংলাদেশ যতটা কাছের, এই বাড়িঘরও ততটাই। তবে এখানকার বাংলা ছবিতে যে ‘বাঙাল’ ভাষা বলা হয়, সেটা খুব খারাপ। বাঙাল ভাষা বলে বাংলাদেশে কিছু নেই। ওখানকার ভাষায় বৈচিত্র্য রয়েছে। তাই এই ‘বাঙাল’ ভাষা শুনে বাংলাদেশের মানুষ খুব রেগে যায়। আর কলকাতার খাবারে মিষ্টি একটু বেশি দেয়া হয়। তবে এখান থেকে পাতিলেবু, মুড়ি বাড়িতে নিয়ে যাই।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 jonotarbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com