সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ০৩:০৩ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
জার্মানি আ:লীগের নতুন সভাপতি সাবু, সা: সম্পাদক আব্বাস গাজীপুরের চান্দনা চৌরাস্তা এলাকা হতে অজ্ঞান পার্টির ০৪(চার) জন গ্রেফতার গাজীপুর হতে মলম/অজ্ঞান পার্টির চক্রের ০২(দুই) জন সদস্য’ গ্রেফতার সাবেক তথ্যমন্ত্রী মিজানুর রহমান শেলী আর নেই এতিমের হকের চামড়ার মুনাফা কার পকেটে? প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় গাবতলীতে বখাটেদের রামদা কোপে পিতাকে আহত করায় গ্রেফতারের দাবীতে আ’লীগের মানববন্ধন গাবতলী কাগইল ইউনিয়নে দুস্থদের মাঝে ভিজিএফ চাল বিতরণ ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে সরকার ব্যর্থ এটিএম বুথে নিরাপত্তাকর্মী খুন ২৬টি মোটরসাইকেলসহ ছিনতাই হওয়া কাভার্ডভ্যান উদ্ধার পাটুরিয়া ঘাটে যানবাহনের দীর্ঘ সারি, ভোগান্তিতে যাত্রীরা কাশ্মীর ইস্যুতে সতর্ক করলেন র‌্যাব ডিজি ‘শিডিউল বিপর্যয়ের চক্রে’ ট্রেন বৃষ্টির সঙ্গে ট্রেনের বিলম্ব, সীমাহীন ভোগান্তি ঘরমুখোদের উত্তপ্ত কাশ্মীরে সেনাবাহিনীর গুলিতে নিহত ৬ বঙ্গমাতার ৮৯তম জন্মবার্ষিকী আজ দুই জাপানি নাগরিকের কোমরে মিলল ১২ কেজি স্বর্ণ রাজধানীতে ঈদ জামাতের সময়সূচি নিম্নচাপটি ভারতের ঝাড়খণ্ডে অবস্থান করছে হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হচ্ছে আজ
জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচন যশোরাঞ্চলের প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালী

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের নির্বাচন যশোরাঞ্চলের প্রার্থী হিসেবে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালী

Spread the love

মির্জা বদরুজ্জামান টুনু  : যশোর

জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনে দলীয় মনোনয়ন পেতে মরিয়া সরকারী দলের নারী নেত্রীরা। দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতির মাঠে আছেন পরীক্ষিত নেত্রীদের পাশাপাশি অপেশাদার রাজনীতিকরাও এই পদে সরকারী দলের মনোনয়ন পেতে দৌড়ঝাপ অব্যাহত রেকেছেন। ইতিমধ্যে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করে পার্টির নমিনেশন বোর্ডে জমা দিয়েছেন এসব প্রত্যাশীরা। তবে এই ক্ষেত্রে মাঠের নেতানেত্রীদের দাবি হচ্ছে রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত দলের বিপদে আপদে যাদেরকে সর্বদা নেতাকর্মীরা পাশে পান, যারা রাজনীতিকে পেশা হিসেবে নিয়ে দলকে মাঠ পর্যায়ে সংগঠিত করছেন এমন একজন নেত্রীকে সংরক্ষিত নারী আসনে এমপি বানলে দল ও সরকার সর্বপরি মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপকৃত হবে। জনগণের প্রত্যাশা প‚রণ হবে। এ ক্ষেত্রে যশোর জেলা যুব মহিলা লীগের সভানেত্রী সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী ও ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের সাবেক প্যানেল চেয়ারম্যান মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালীকে সংরক্ষীত নারী আসনে যশোরাঞ্চলের এমপি হিসেবে দেখতে চান তৃণমুলের নেতাকর্মীরা। তিনি দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও যশোর-২ চৌগাছা ঝিকরগাছা আসন থেকে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন।

’৯০এর দশকে ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী হিসেবে আওয়ামী রাজনীতির হাতে খড়ি হয় মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালীর। তৃণমুলের জনপ্রতিনিধি হিসেবেও তিনি সফলতার স্বাক্ষর রেখেছেন। শিমুলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বর থেকে শুরু করে ঝিকরগাছা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান পদে সরস=াসরি লড়াই করে তিনি বিপুল ভোটে বিজয়ী হয়েছিলেন। সফল ভাইস চেয়ারম্যান রাজনৈতিক সংগঠক হিসেবে পেয়েছেন স্থাানীয় সরকারের স্বর্ণপদক। বিগত বিএনপি জামাতের আগুন সন্ত্রাস বিরোধী মুভমেন্টসহ সকল গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক আন্দোলন সংগ্রামে তিনি ছিলেন সামনের সারিতে। যশোরের রাজপথে তার উপস্থিাতি ছিল নজর কাড়া। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে যখন সেনাশাষিত তত্বাবধায়ক সরকার অন্তরীণ করেন তখন যশোরের রাজপথে যে কজন নারী নেত্রী সক্রিয় ভ‚মিকা পালন করেন তাদের অন্যতম সোনালী। তিনি যশোর সরকারী এম এম কলেজ ছাত্রলীগের নেত্রী হিসেবেও ’৯০ দশকে যশোরের রাজপথ প্রকম্পিত করেছেন। ১৯৯০ সালে ঝিকরগাছা শহীদ মশিউর রহমান ডিগ্রি কলেজে অধ্যায়নকালে তিনি কলেজ ছাত্রলীগের নেত্রী ছিলেন। এর পর ১৯৯৪ সালে তিনি যশোর সরকারী এম এম কলেজে অধ্যায়নকালে কলেজ ছাত্রলীগের রাজনীতিতে গুরুত্বপ‚র্ণ ভ‚মিকা পালন করেন। পর্যায়ক্রমে তিনি জেলা ছাত্রলীগ ও জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। তিনি যশোর জেলা আওয়ামীলীগের একজন সক্রিয় কর্মী। তিনি যশোর জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের একজন সামনের সারির নেত্রী হিসেবে বিগত দিনে সব আন্দোলন সংগ্রামে অগ্রণী ভ‚মিকা পালন করেছেন। যার স্বীকৃতি স্বরুপ তিনি ইতিমধ্যে দলের হাইকমান্ডের কাছে সুপরিচিতি লাভ করেছেন। অর্জন করেছেন জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতির পর। তার নেতৃত্বে জেলার সকল উপজেলায় বর্তমানে যুবমহিলা লীগের কয়েক হাজার নারী কর্মী সক্রিয় রাজনিিততে সম্পৃক্ত। গত সংসদ নির্বাচনে তিনি যশোর -২ আসন থেকে দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছিলেন। আওয়ামীলীগের দলীয় মনোনয়ন বোর্ডের সাক্ষাতকারও প্রদান করেছিলেন। আসন্ন সংরক্ষিত নারী আসনের জন্যও তিনি দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। তিনি মনে করেন, একজন মাঠের রাজনীতিবিদ হিসেবে তিনি নিজেকে এই পদের যোগ্য মনে করেন। তিনি নিজে একজন সফল নারী উদ্যোক্তা।

 বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালী বলেন,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারীর ক্ষমতায়নে গুুত্বসহকারে কাজ করছেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে যশোরাঞ্চলের নারী ও শিশুদের উন্নয়নে কাজ করতে চাই। দলের মাঠ পর্যায়ের অবহেলিত নেতাকর্মীদের কর্মস্থাান সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করতে চাই। নারীর উন্নয়ন হলে দেশ এগিয়ে যাবে। কর্মমুখি যুব সমাজ দেশের সম্পদ। তাদেরকে বেকারত্বের অশিশাপ থেকে মুক্ত করতে কাজ করার দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন এই নারী নেত্রী।

মঞ্জুনাহার নাজনীন সোনালি বলেন, ১৯৯০ সাল থেকে যশোরের মাটি মানুষের সাথে মিশে রাজনীতি করছি। রাজপথের আন্দোলন সংগ্রামে ককনো পিছপা হয়নি। অপারেশন ক্লিনহার্ট ও ওয়ান ইলেভেন সরকারের আমলে যখন বাঘা বাঘা রাজনীতিবিদরা রাস্তায় নামতে সাহস দেখাননি তখনও দলীয় কর্মীদের সাথে নিয়ে যশোরের রাজপথে সক্রিয় থেকেছ্ িনেত্রীর মুক্তির আন্দোলনে সাধ্যমতো অবদান রেখেছি। বিগত দিনের ধারাবাহিকতায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে মুল্যায়ন করলে আমি তার যোগ্য প্রতিদান দেবে। দলকে তৃণমুলে আরো বেশি শক্তিশালী করবো। রবিং গ্রæপিং মুক্ত একটি রাজনীতি নেত্রীকে উপহার দেবো।

সোনালী ১৯৭৪ সালে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গঙ্গানন্দপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা আনসার আলী একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা ও স্কুল শিক্ষক। মা নুরুন্নাহার বেগম গৃহিনী। সোনালীর একমাত্র ছেলে সামিন ইয়াসির প্রীতম যশোর জিলা স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্র।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 jonotarbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com