বুধবার, ২২ মে ২০১৯, ১১:২৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
ইঞ্জিন ও পাওয়ার কার সঙ্কট ঈদে রেলযাত্রায় বিড়ম্বনা বাড়াতে পারে যানবাহনের মেয়াদোত্তীর্ণ সিলিন্ডার রাজপথে বাড়াচ্ছে প্রাণহানির ঝুঁকি কৃষক কাঁদছে, পুড়ছে ধান! টিকেট পেতে ভোগান্তি ওয়াহাব-আমির-আসিফ পাকিস্তান বিশ্বকাপ দলে পাকিস্তানকে হারাল ইংল্যান্ড ব্রাজিলে মদের দোকানে বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহত ১১ চলে গেলেন কৌতুক অভিনেতা স্যামি শোর তাজিকিস্তানে কারাগারে দাঙ্গায় নিহত ৩২ খোলামেলা আলোচনায় মোনালিসা এবার মিলার বিরুদ্ধে মানহানীর মামলা নশিপুর ইউনিয়ন পরিষদে উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা গাবতলীতে আ’লীগ নেতা শিলু’র উদ্যোগে ইফতার মাহফিল গাবতলীতে স্বামীর সন্ধান চেয়ে গৃহবধুর সংবাদ সম্মেলন বাগবাড়ীতে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৩৮তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে ব্যাকআপ হিসেবে থাকছেন বাংলাদেশের ৬ ক্রিকেটার রমিজ রাজার মুখে বাংলাদেশ দলের ভূয়সী প্রশংসা ইমামের চোট গুরুতর! উৎকণ্ঠা পাক শিবিরে ছাত্রলীগের তালিকায় আরও ৮২ বিতর্কিত নেতা মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে বারবার ছুটে আসি: সালমা ইসলাম এমপি
ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে সেবা পাচ্ছেন গাইবান্ধাবাসী

ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে সেবা পাচ্ছেন গাইবান্ধাবাসী

Spread the love

নুরুল ইসলাম, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি \ গাইবান্ধার প্রত্যন্ত অঞ্চলের হাজার হাজার সাধারণ মানুষ ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার (ইউডিসি) সুবিধা পাচ্ছেন। এতে তাদের সময় ও অর্থ দুটিই সাশ্রয় হচ্ছে। ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টার আরও প্রসার, ইন্টারনেট সুবিধাসহ গতি বাড়ানোর প্রয়োজন বলে দাবী সুবিধাভোগীদের।

৭ উপজেলা নিয়ে গঠিত গাইবান্ধা জেলা। এ জেলার প্রতিটি ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারে স্বেচ্ছায় সেবা দিচ্ছেন ইউনিয়ন তথ্য সেবা কেন্দ্রের একজন পুরুষ ও একজন নারী উদ্যোক্তা। আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি জনগণের দোরগোড়ায় পৌছে দিচ্ছে ইউডিসি।

এক সময় গ্রামীণ জনগণকে চাকরি, ভর্তি পরীক্ষার আবেদন ফরম পূরণ, ফটোকপি ও ছবি উঠানো থেকে শুরু করে বিভিন্ন সেবা নিতে দূর-দূরান্তে শহরে যেতে হতো। এখন দেশের সব ইউনিয়ন পরিষদে ইউনিয়ন ইউডিসির মাধ্যমে স্বল্প সময়ে দেয়া হচ্ছে নানা ধরণের তথ্য সেবা। তথ্য প্রযুক্তির সরঞ্জামের স্বল্পতা থাকলেও সেবা প্রদানে কমতি নেই ইউডিসিতে। প্রতি ইউডিসিতে সরকার থেকে প্রথমে ডেক্সটপ, প্রিন্টার, স্ক্যানার, ক্যামেরা ও প্রজেক্টর দেয়া হয়। পরে একটি করে ল্যাপটপ দেয়া হয়। প্রতিদিন প্রায় ১০০-১৫০ জন বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ সেবা নিতে আসেন। ইউনিয়ন পরিষদের একটি ঘরে প্রতিদিন উদ্যোক্তারা সকাল ৯ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা, আবার কখনও রাত ৮টা থেকে ৯ টা পর্যন্ত কাজ করে থাকেন। সদর উপজেলার ল²ীপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান বাদল ও কুপতলা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রাজ্জাক ও তথ্য সেবা কেন্দ্রের উদ্যোক্তা মোজাম্মেল হক জানান, সরকার যুগোপযোগী সময়ে ইউনিয়ন পর্যায়ে ডিজিটাল সেন্টার চালু করেছে। আর তথ্য সেবার মাধ্যমে জনগণ উপকৃত হচ্ছে। এটি সরকারে নিঃসন্দেহ একটি ভালো উদ্যোগ। আর এ উদ্যোগকে ব্যাপকভাবে প্রসারিত করতে ইন্টারনেটের গতি বাড়াতে হবে। এছাড়া যেসব উদ্যোক্তা স্বেচ্ছায় সেবা দিয়ে যাচ্ছেন, সরকার যদি তাদের স্থায়ীভাবে নিয়োগের ব্যবস্থা করতেন তাহলে আরো ভালো হতো।

সাধারণ জনগণ বলছেন, ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারগুলো শুরু থেকেই অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। সেই সঙ্গে নিজ উদ্যোগে কাজ করছেন উদোক্তারা। ডিজিটাল সেবা পেতে আরও জনসচেতনতা বাড়াতে হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 jonotarbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com