বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯, ০৮:৫৩ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
বাবার পর ধর্ষণ করলো ছেলে নিজে প্রাণ হারালেও বহু মানুষের জীবন বাঁচালেন যিনি মোদির বিরুদ্ধে বারাণসী থেকেই লড়বেন প্রিয়াঙ্কা মোদিকে জবাব দিলেন মমতা শ্রীলঙ্কায় আবারও বিস্ফোরণ বাবার কাঁধেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে ১০ বছরের কোলোনি চীনে মুখ থুবড়ে পড়েছে আমাজান নগদ ১০ শতাংশ লভ্যাংশ দেবে ইসলামী ব্যাংক ১২ শতাংশ লভ্যাংশ দেবে ফিনিক্স ইনস্যুরেন্স সঞ্চয়পত্রের সুদহারে পরিবর্তন আসছে না জাহিদুরকে বহিষ্কারের ইঙ্গিত দিলেন গয়েশ্বর! দলের কথা এড়িয়ে মানুষের কথা বললেন জাহিদুর ড. কামালের ব্যাংক হিসাব তলব কলেরা হাসপাতালে ধারণ ক্ষমতার তিনগুণ বেশি রোগী কেরানীগঞ্জে প্লাস্টিক কারখানায় আগুন চীনের মহড়ায় বাংলাদেশের যুদ্ধজাহাজ ‘প্রত্যয়’ বিরতিহীন বনলতা এক্সপ্রেস উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী ‘হয় দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তারা থাকবে, না হয় আমি থাকব’ টঙ্গীতে ১৮’শ পিচ ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক টঙ্গী তুরাগ নদের তীরে অবৈধ স্থাাপনা উচ্ছেদ
সপ্তাহের ব্যবধানে পুঁজিবাজারে সূচক বাড়লেও লেনদেন কমেছে

সপ্তাহের ব্যবধানে পুঁজিবাজারে সূচক বাড়লেও লেনদেন কমেছে

জনতার বাংলা রিপোর্ট : অব্যাহত দরপতন থেকে ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার। সপ্তাহের ব্যবধানে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সার্বিক মূল্যসূচক বেড়েছে। কিন্তু এসময় ডিএসইর সার্বিক লেনদেন কমেছে ৪.৯০ শতাংশ। ডিএসইর সপ্তাহিক বাজার পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, সমাপ্ত সপ্তাহে (১৮ নভেম্বর-২২ নভেম্বর) ডিএসইতে ২ হাজার ৬২৯ কোটি ৪০ লাখ ৩২ হাজার ৯৫৮ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইতে ২ হাজার ৭৬৪ কোটি ৭৯ লাখ ১৯ হাজার ৩৬১ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছিল। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে ডিএসইর লেনদেন কমেছে ৪.৯০ শতাংশ।

গত সপ্তাহে ডিএসইতে দৈনিক গড় লেনদেন হয়েছে ৬৫৭ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইতে দৈনিক গড় লেনদেন হয়েছে ৫৫২ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। অর্থাৎ সপ্তাহের ব্যবধানে গড় লেনদেন বেড়েছে ১৮.৮৮ শতাংশ।

সদ্য সমাপ্ত সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া ৩৪৯টি কোম্পানি ও ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬৩টির, দর কমেছে ১৫৪টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ২৯টি প্রতিষ্ঠানের। এর আগের সপ্তাহে ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও ফান্ডগুলোর ১৪৩টির দর বেড়েছিল। ওই সময় দর কমেছিল ১৮৬টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ১৮টি প্রতিষ্ঠানের।

বিক্রয় চাপ কমায় গত সপ্তাহে ডিএসইর সার্বিক মূল্যসূচক বেড়েছে ৬১.৩২ পয়েন্ট। সপ্তাহের শুরুতে ডিএসইর সার্বিক মূল্যসূচক ছিল ৫২৪৪.৬৩ পয়েন্ট। সপ্তাহের ব্যবধানে তা ৫৩০৫.৯৫ পয়েন্টে স্থিতি পেয়েছে। এসময় শরীয়াহ্ ভিত্তিক কোম্পানির মূল্যসূচক ১৯.৪৪ পয়েন্ট বেড়েছে।

সপ্তাহ শেষে ডিএসইতে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে ইউনাইটেড পাওয়ার। এসময় কোম্পানিটির ১১৬ কোটি ৪৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এসময় কোম্পানিটির শেয়ার দর কমেছে ৫.৫৬ টাকা।

টার্নওভার তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল খুলনা পাওয়ার। কোম্পানিটির ১১৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ৯৯ কোটি ৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মধ্যে দিয়ে টার্নওভার তালিকায় তৃতীয় অবস্থানে ছিল ইনটেক অনলাইন।

টার্নওভার তালিকায় থাকা অন্যান্য কোম্পানিগুলো হলো- সায়হাম টেক্সটাইল, ব্র্যাক ব্যাংক, শেফার্ড ইন্ডাস্ট্রিজ, স্কয়ার ফার্মা, সায়হাম কটন মিলস, এসকে ট্রিমস ও ওয়াটা কেমিক্যাল।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 jonotarbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com