বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ১০:২১ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরনাম
গ্রহণযোগ্য নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করা প্রয়োজন তরুণদের মধ্যে বেকারত্ব উদ্বেগজনক বিদ্যুতে দক্ষিণ কোরীয় বিনিয়োগ চাইলেন প্রধানমন্ত্রী সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ১৪ দলের আহ্বান ভারত কী আমাদের জিতিয়ে দিতে পারবে: কাদের বাংলাদেশে স্কাইপ বন্ধ ‘স্কাইপ বন্ধ করে সরকার ঘৃণ্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করলো’ শীতকালীন সবজিচাষে খুশি পঞ্চগড়ের কৃষকরা চলনবিলে নিভু নিভু করছে চাকা তৈরির পেশা নির্ভুল পথেই হাঁটছেন এরশাদ’ ‘পুলিশকে অ্যাকশনে নেয়ার উদ্দেশ্য ছিল সংঘর্ষের পরিকল্পনাকারীদের’ সেই হেলমেটধারী গ্রেফতার কার্জন হলের সামনে থেকে নবজাতক উদ্ধার ইভিএম নিয়ে সক্রিয় হচ্ছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নীতিমালার বাইরে গেলে পর্যবেক্ষক সংস্থার নিবন্ধন বাতিল: ইসি সচিব হাসপাতালে স্ত্রীর লাশ ফেলে পালালেন স্বামী এরশাদ ঢাকায়, না রংপুরে সিংহভাগ ইসলামী দল ক্ষমতাসীন দলে ‘ঘটনা ঘটলেও তদন্ত কমিটি করেনি ইসি’ দখল ও কারচুপি ঠেকাতে কেন্দ্র পাহারার নির্দেশ
৫ কার্যদিবস পর বাড়লো সূচক

৫ কার্যদিবস পর বাড়লো সূচক

জনতার বাংলা রিপোর্ট : টানা ৫ কার্যদিবসে পতনের পর ঘুরে দাঁড়িয়েছে দেশের প্রধান পুঁজিবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। দিনশেষে ডিএসইর সার্বিক মূল্যসূচক ৩৭.৮৫ পয়েন্ট বেড়েছে। এসময় ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪৮৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকা।

এদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সাধারণ মূল্যসূচক বেড়েছে ৫৪.৮৩ পয়েন্ট। এসময় সিএসইতে ২১ কোটি ৯৩ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। ডিএসই ও সিএসইর বাজার পর্যালোচনায় এ তথ্য জানা গেছে। বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, ডিএসইতে লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও ফান্ডগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ২০৬টির, দর কমেছে ৮০টির ও দর অপরিবর্তিত ছিল ৪৯টি প্রতিষ্ঠানের। এসময় ডিএসইতে ১২ কোটি ৮৪ লাখ ৩৬ হাজার ৩৬২টি শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। দিনশেষে ডিএসইতে ৪৮৪ কোটি ৪৮ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। এর আগের কার্যদিবসে ডিএসইতে ৪৪০ কোটি ৩ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছিল। অর্থাৎ বুধবার দিনশেষে ডিএসইতে লেনদেন বেড়েছে প্রায় ৪৪ কোটি টাকা। লেনদেন শেষে ডিএসইর সার্বিক মূল্যসূচক ডিএসইক্স আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৩৭.৮৫ পয়েন্ট বেড়েছে। এসময় শরীয়াহ্ ভিত্তিক কোম্পানিগুলোর মূল্যসূচক ডিএসইএস বেড়েছে ৭.০৯ পয়েন্ট ও ডিএস-৩০ সূচক বেড়েছে ১০.৭৮ পয়েন্ট। দিনশেষে ডিএসইতে টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে এসকে ট্রিমস। কোম্পানিটির ২০ কোটি ৭৫ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। টার্নওভার তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল সায়হাম কটন, কোম্পানিটির ১৯ কোটি ৪১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। ১৮ কোটি ১ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মধ্যে দিয়ে টার্নওভারে তৃতীয় অবস্থানে ছিল ভিএফএস থ্রেড ডাইং। এছাড়াও টার্নওভার তালিকায় ছিল— বিবিএস ক্যাবলস, ইন্ট্রাকো রি-ফুয়েলিং, সামিট পাওয়ার, পেনিনসুলা চিটাগং, ইনটেক অনলাইন, শাশা ডেনিমস ও মুন্নু সিরামিক। এদিকে, চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হওয়া কোম্পানি ও ফান্ডগুলোর মধ্যে দর বেড়েছে ১৩৫টির, দর কমেছে ৮৪টির ও অপরিবর্তিত ছিল ২৫টির। এসময় সিএসইতে ২১ কোটি ৯৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

দিনশেষে সিএসইর সাধারণ মূল্যসূচক আগের কার্যদিবসের তুলনায় ৫৪.৮৩ পয়েন্ট বেড়েছে। এসময় টার্নওভার তালিকায় শীর্ষে উঠে এসেছে খুলনা পাওয়ার, কোম্পানিটির ৩ কোটি ১৯ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© All rights reserved © 2018 jonotarbangla.com
Design & Developed BY ThemesBazar.Com